জামালপুর সদরের তৃনমুল নেতাকর্মীরা মনোনয়ন প্রাপ্তিতে রেজনুর ত্যাগের মূল্যায়ন চায়

সম্পাদক-প্রকাশকঃ মারুফুর রহমান ফকির
সোম, 12.11.2018 - 11:19 PM
Share icon
Image
এস.এম হোসাইন আছাদ ॥ জামালপুর-৫ (সদর) আসনে নৌকার মাঝি হতে চান এফবিসিসিআইর পরিচালক, জামালপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি রেজাউল করিম রেজনু সিআইপি। এরই মধ্যে সদর আসনের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা দলের দুর্দিনের কান্ডারি রেজনুর পক্ষে মাঠে নেমেছেন। প্রতিদিন তার সমর্থকরা সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড ভোটারদের মাঝে তুলে ধরা ছাড়াও উঠান বৈঠক ও সভা-সমাবেশ করে যাচ্ছেন। প্রতিটি উঠান বৈঠক ও সমাবেশ থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রাপ্তিতে রেজাউল করিম রেজনু সিআইপি’র রাজনৈতিক ত্যাগের মূল্যায়ন দাবী জানান তৃনমুল নেতাকর্মীরা। সিআইপি রেজাউল করিম রেজনু জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক। বর্তমানে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম সদস্য। তিনি এফবিসিসিআইর পরিচালক ও জামালপুর চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির একাধিকবারের সভাপতি। কর্মীবান্ধব এই নেতা দায়িত্বশীল কোনো পদে না থাকলেও আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাদের আর্থিক, মানসিকভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। তাদের সুখ-দুঃখের সঙ্গী রয়েছেন দীর্ঘদিন ধরে। এ বিষয়ে রাজনৈতিক সহকর্মী জামালপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি রফিকুল ইসলাম মনু বলেন, রেজাউল করিম রেজনু জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের জন্য শহরের প্রাণকেন্দ্রের রওশন জাবেদ মার্কেটের তৃতীয় তলাটি আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার নামে লিখে দিয়েছেন। তিনি বাপ-দাদার রেখে যাওয়া সম্পদ ব্যয় করেই হাজার হাজার নেতাকর্মীর নানা সমস্যা সমাধান করে যাচ্ছেন। তার দান-অনুদানে চলছে অসংখ্য সামাজিক সংগঠন। দলীয় প্রধান শেখ হাসিনার প্রতিটি নির্দেশ পালন করে যাচ্ছেন। সদরে তার রয়েছে বিশাল ভোট ব্যাংক। গত জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাকে মনোনয়ন দিয়েছিলেন তার পক্ষে একমাত্র তিনি ও তার সমর্থকরা নির্বাচনী মাঠে ছিলেন। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে এসব হিসাব-নিকাশ করছেন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা। তারা দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ অমান্যকারীদের হাতে নৌকা প্রতীক না দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন। তার আরেক সহকর্মী জামালপুর সদরের লক্ষ্মীরচর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা কামাল বলেন, রেজাউল করিম রেজনু তৃণমূলে যেভাবে বছরের পর বছর একদিকে দলীয় সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি অপর দিকে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা জয়যুক্ত হওয়ার ক্ষেত্রে দিন রাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তাকে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দিয়ে তার ত্যাগের মূল্যায়ন দেওয়া উচিৎ বলে আমরা মনে করি। জামালপুর চেম্বার অব কমার্সের সহ-সভাপতি ব্যবসায়ী ইকরামুল হক নবীন বলেন, আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা নানা হিসাব-নিকাশ করে রেজাউল করিম রেজনুকে নিয়ে মাঠে নেমেছেন। তারা দিন-রাত ছুটে বেড়াচ্ছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। আওয়ামী লীগের সভাপতি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তৃণমূলের নেতাকর্মীদের চাওয়ার মুল্যায়ন দেবেন বলে আমি মনে করি। জামালপুর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা রানাগাছা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল জলিল জানান, তৃণমূলের নেতাকর্মীদের দাবি আওয়ামী লীগের সভাপতি তৃণমূল পর্যায়ে জনপ্রিয়তা যাচাই করেই সদর আসনে নৌকা প্রতীক বরাদ্দ দেবেন। তিনি বলেন, জেলা সদরের গুরুত্বপূর্ণ আসনটি ধরে রাখতে দলের সভানেত্রী কর্মীবান্ধব নেতা রেজনুর কাঁধেই নৌকা তুলে দেবেন- এমনটাই আশা করছি।
Share icon